টাচ নিউজ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া হলে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে হলের একাধিক কক্ষ থেকে দুটি মোবাইল ফোন চুরি হয়েছে বলে জানা যায়। শনিবার (১ জানুয়ারি) দিবাগত রাত তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চবির খালেদা জিয়া হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম দৈনিক অধিকারকে বলেন, হলের ১২৫, ২৪০ ও ৪২৬ নম্বর কক্ষে চুরির খবর পেয়েছি। আমরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি, কালো চাদর পরিহিত কেউ একজন এ কাজ করেছে। অনুমান করা হচ্ছে সে হলেরই কেউ।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় দুটি মোবাইল চুরি হয়েছে। আশ্চর্যের বিষয় হলো রুমের টেবিলে ল্যাপটপ থাকলেও তাতে হাত দেয়নি চোর।

তবে কে বা কারা এ চুরির সাথে সংশ্লিষ্ট তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। আবাসিক শিক্ষকরা বলছেন এটা ভেতরের কোনো মেয়ের কাজ। অপর দিকে ছাত্রীদের দাবি বাইরের কেউ দেয়াল টপকে প্রবেশ করে চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে।

খালেদা জিয়া হলের আবাসিক ছাত্রী নুসরাত জাহান বলেন, হলে তিনটা রুমে চুরি হয়েছে। পরে ছাত্রীরা চোরের অস্তিত্ব টের পেলে তারা পালিয়ে যায়। যে চোরটা হলের প্রাচীরের ওপাড়ে পালিয়ে গেছে সে ছেলে। আর নিচতলার মেয়েরা যাকে বারান্দায় দৌড়ে যেতে দেখেছে সে মেয়ে।

এ দিকে উক্ত ঘটনায় শিক্ষার্থীদের মনে হলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী ও চবি ছাত্রলীগ নেত্রী শামীমা সীমা বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা কতটা নাজুক হলে একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেয়েদের হলে চোর ঢুকে ৩/৪ তলায় উঠে রুমে ঢুকে চুরি করে নিরাপদে দৌড়ে পালিয়েও যায়! মেয়েদের হলকে যেখানে সবচেয়ে নিরাপদ মনে করা হয় সেখানে এই ধরনের ঘটনা একেবারেই অপ্রত্যাশিত।

প্রসঙ্গত, এর কয়েকদিন আগেও হলের নিচতলায় অন্ধ মেয়েদের রুম থেকেও ফোন চুরির ঘটনা ঘটেছে। তারা এ বিষয়ে হল কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরেও কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে