টাচ নিউজ ডেস্ক: চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের গুরুত্বপূর্ণ উপাদানসমূহ অর্থাৎ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবট, ইন্টারনেট অফ থিংস, স্বনিয়ন্ত্রিত যানবাহন, ন্যানোপ্রযুক্তি, জৈবপ্রযুক্তি ইত্যাদি আমাদের জন্য যেমন সুযোগ তৈরি করছে, তেমনি নতুন নতুন চ্যালেঞ্জের উদ্ভব হচ্ছে। এ চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলায় বিভিন্ন দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা অপরিহার্য বলে মন্তব্য করেছেন, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

গতকাল  ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা (UNIDO)-র সহযোগিতায় শিল্প উন্নয়নের উপর ২য় আঞ্চলিক সম্মেলনে বক্তিতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লব বৈশ্বিক আয় বৃদ্ধি এবং বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। এসকল বিষয় বিবেচনায় এবং এ চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলায় বাংলাদেশ বিভিন্ন নীতি, আইন, বিধি ও কৌশলপত্র প্রণয়ন করেছে। দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। বিভিন্ন দেশের সাথে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির চেষ্টা চলছে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে হবে।

দু’দিন ব্যাপী আয়োজিত এ সম্মেলনে জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা (ইউএনআইডিও) এর প্রতিনিধিবৃন্দ, শ্রীলংকা ও ইন্দোনেশিয়াসহ কয়েকটি দেশের শিল্পমন্ত্রীগণ, আসিয়ানের প্রতিনিধিসহ প্রায় ২৫টি দেশের সরকারী ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে