টাচ নিউজ ডেস্কঃ চট্রগ্রামের জালালাবাদ মাদরাসায় আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মাদরাসার আয়োজিত মাহফিলে সভাপতিত্ব ও দোয়া পরিচালনা করেন অত্র জালালাবাদ মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা দেশবরেণ্য হাফেজ বিশিষ্ট ইসলামিক চিন্তাবিদ আলহাজ্ব হাফেজ মুহাম্মদ তৈয়ব, প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ওলামা লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী, ওলামা লীগের কেন্দ্রীয় নেতা হাফেজ মাওলানা ইদ্রিস, মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মদ মুশতাক, চট্রগ্রাম ওলামা লীগ নেতা মাওলানা আব্দুর রহীম ও হাফেজ মাওলানা নেজাম প্রমুখ।

দোয়া পূর্ব মাহফিলে প্রধান অতিথি মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী বলেন, আপনারা আজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া-মাহফিলের আয়োজন করেছেন এতে আমি অনেক আনন্দিত। কেননা আপনারা দোয়া মাহফিলের মাধ্যমে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছেন। বঙ্গকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা কওমী মাদরাসার শিক্ষা সনদের এমএ সমমানের স্বীকৃতি দিয়ে আপনাদেরকে যে সম্মানিত করে মর্যাদার আসনে বসিয়েছেন তারই কৃতজ্ঞতায় এই দোয়া-মাহফিল।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের মূল শিক্ষার প্রতি আন্তরিক এবং শ্রদ্ধাশীল। তিনি ইতিমধ্যে কওমী সনদের স্বীকৃতি, আরবী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা ও পাঁচশত ৬০টি মডেল মসজিদ প্রতিষ্ঠাসহ পঁচাত্তর হাজার কোরআন শিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করে তা প্রমাণ করেছেন।

মুফতী মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও ইসলামের প্রচার-প্রসারের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠাসহ ইসলামের খেদমতে বহুমুখী অবদান রেখেছেন। কৃতজ্ঞতার দোয়া-মাহফিল চার দালানের ভিতর সীমাবদ্ধ রাখলে চলবেনা। শেখ হাসিনা ইসলামের জন্য বহুমুখী যে খেদমত করে যাচ্ছে তা মসজিদ মাদরাসার বাহিরেও ওয়াজ মাহফিলের মাধ্যমে জনগণের মাঝে তুলে ধরবেন।
তাহলেই কৃতজ্ঞতার প্রকৃত হক আদায় হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

আওয়ামী লীগের ধর্ম উপকমিটির সদস্য বলেন, ইসলামের অপব্যাখা করে একশ্রেণীর ক্ষমতালোভী স্বাধীনতাবিরোধী চক্র আওয়ামী লীগ তথা সরকারের বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তারা তাদের চক্রান্ত বাস্তবায়নে সরলমনা আলেম-ওলামাদেরকে মিথ্যাচারের মাধ্যমে উস্কানি দিয়ে বিভ্রান্ত করে অতীতের ন্যায় মাঠে নামানোর অপচেষ্টাও করতে পারে। আশা করি আপনারা সে চক্রান্তে পা না দিয়ে চলমান উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখার স্বার্থে ও দেশের শান্তি-সম্প্রীতি রক্ষায় নাগরিকের দায়িত্ববোধে সজাগ থেকে দায়িত্ব পালন করে যাবেন ইনশাআল্লাহ। ধর্ম যারযার রাষ্ট্র সবার সম্মানিত আলেম সমাজকে এই বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। আমরা চাই আগামীতে বীর চট্রলায় সর্বজনশ্রদ্ধীয় হুজুর হাফেজ তৈয়ব সাহেবের নেতৃত্ব দেশপ্রেমিক আলেম সমাজের এক অটুট ঐক্য গড়ুক। যে নেতৃত্বের মাধ্যমে গড়ে উঠবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ তরুণ আলেম সমাজের বহর। যারা অন্যায়ের প্রতিবাদে ভূমিকা রাখবে সাইয়্যেদানা উমর ইবনে খাত্তাব রাঃ ন্যায় আর অধিকার আদায়ে ভুমিকা রাখবে বিশ্বে শোষিত গণমানুষের নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতো।

হাফেজ মুহাম্মদ তৈয়ব দোয়ায় আল্লাহ সোবহানাহু তা’য়ালার দরবারে প্রধানমন্ত্রী’র সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা ছাড়াও সকল শহীদ মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধুসহ পঁচাত্তরের শাহাদাতবরণ কারী সকল শহীদ ও জাতীয় চারনেতা এবং একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত নারী নেত্রী আইভী রহমানসহ সকল শহীদদের রুহের শান্তি কামনা করেন। এছাড়াও মুনীজাতে দেশের শান্তি, উন্নয়ন-অগ্রগতিকে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের সকল দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গের কথা উল্লেখ করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে