টাচ নিউজ ডেস্কঃ ঈদ শে‌ষে ঢাকাসহ দে‌শের বি‌ভিন্নস্থা‌নে কর্মস্থ‌লে যাওয়া যাত্রী ও যানবাহ‌নের চাপ কম‌তে শুরু ক‌রে‌ছে রাজবাড়ী দৌলত‌দিয়া ফে‌রিঘা‌টে। যাত্রী ও যানবাহ‌নের চাপ কমে আসার কার‌ণে একই সঙ্গে ভোগা‌ন্তিও কম‌তে শুরু ক‌রে‌ছে দৌলত‌দিয়া ফে‌রিঘাট এলাকায়।

আজ সোমবার দুপু‌রে দৌলত‌দিয়া ফে‌রিঘাট এলাকায় দেখা যায়, ফে‌রিঘা‌টের জি‌রো প‌য়েন্ট থে‌কে ঢাকা-খুলনা মহাসড়‌কের বাংলা‌দেশ হ‌্যাচা‌রিজ পর্যন্ত যাত্রীবাহী বাস ও পণ‌্যবাহী ট্রাক ফে‌রিপা‌রের অপেক্ষায় র‌য়ে‌ছে।

অন‌্যদি‌কে, ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক সচল রাখার জন‌্য বেশ কিছু যানবাহন গোয়ালন্দ মো‌ড়ে আট‌কে দি‌চ্ছেন পু‌লিশ সদস‌্যরা। দে‌শের বি‌ভিন্ন স্থান থেকে ছে‌ড়ে আসা ব‌্যক্তিগত গাড়ীগু‌লো‌ সরাসরি ফেরি‌তে যে‌তে পার‌ছেন। তবে যাত্রীবাহী বাসগু‌লো‌কে ফে‌রিপা‌রের জন‌্য ঘন্টার পর ঘন্টা নদী পা‌রের অপেক্ষায় থে‌কে ফে‌রি‌তে যে‌তে পার‌ছে।

বাসযাত্রীরা অভিযোগ ক‌রে ব‌লেন, আজ সোমবার দুপুর পর্যন্ত ফে‌রিঘা‌টে ভোগা‌ন্তি কম র‌য়ে‌ছে। আমা‌দের ফে‌রিপা‌রের জন‌্য ৫‌ থেকে ৬ ঘণ্টা পর্যন্ত অপেক্ষায় থে‌কে ফেরি‌তে যে‌তে পার‌ছি। গত ক‌য়েক‌দি‌নের তুলনায় আজ ভোগা‌ন্তি একটু কম।

ট্রাক চাল‌কেরা অ‌ভি‌যোগ ক‌রে ব‌লেন, দৌলত‌দিয়া প্রা‌ন্তে ২ থে‌কে ৩‌দিন পর্যন্ত ফে‌রিপা‌রের অপেক্ষায় থাক‌তে হ‌চ্ছে। যমুনা সেতু হ‌য়ে যে‌তে গে‌লেও একই সময় লা‌গে। তাই ভোগা‌ন্তি মে‌নে নি‌য়েই আমরা ফে‌রিঘাট পার হ‌চ্ছি।

রাজবাড়ীর ট্রা‌ফিক ইন্সে‌পেক্টর তারক চন্দ্র পাল ব‌লেন, দৌলত‌দিয়া প্রান্ত দি‌য়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপা‌রে স্ব‌স্তি ফির‌তে শুরু ক‌রে‌ছে। ব‌্যক্তিগত গাড়িগু‌লো সরাস‌রি ফে‌রি‌তে যে‌তে পার‌ছে। বাসযাত্রীদের ভোগা‌ন্তি ক‌মে‌ছে।

বিআইড‌ব্লিউ‌টি‌সির দৌলত‌দিয়া ফে‌রিঘা‌টের ব‌্যবস্থাপক মো. শিহাব উদ্দীন ব‌লেন, এক‌টি ফে‌রি‌তে যা‌ন্ত্রিক ত্রু‌টি দেখা দি‌য়ে‌ছে। বর্তমা‌নে এরু‌টে ২০‌টি ফে‌রি চলাচল কর‌ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে