টাচ নিউজ ডেস্ক: দেশনেত্রীর মুক্তির এই সংগ্রামে ছাত্রদলের প্রতিটি নেতাকর্মী প্রয়োজনে রাজপথে নিজের জীবন বিলিয়ে দিতে প্রস্তুত থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৩ আসনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আলহাজ্ব রকিবুল ইসলাম বকুল।

শুক্রবার ১৯নভেম্বর জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি, সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনায় খুলনা-৩ সংসদীয় আসনের খালিশপুর ও খানজাহান আলী থানা ছাত্রদল কর্তৃক আয়োজিত মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আলহাজ্ব রকিবুল ইসলাম বকুল বলেন, বাংলাদেশের মানুষের গণতন্ত্রের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বিএনপি চেয়ারপার্সন, আপসহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আরাম আয়েশের জীবন ছেড়ে আজীবন সংগ্রামে লিপ্ত রয়েছেন। দেশের মানুষের ভাতের এবং ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য তিনি এখন পর্যন্ত সংগ্রাম করে যাচ্ছেন। অথচ এই মিডনাইট ভোটের ফ্যাসিস্ট সরকার সুপরিকল্পিত ভাবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে প্রহসন মূলক মামলায় ফরমায়েশি রায় প্রদান করে গৃহবন্দি করে রেখেছে। এমনকি দল এবং পরিবারের পক্ষ থেকে বারবার আবেদনের পরেও অসুস্থ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য তাকে দেশের বাহিরে পর্যন্ত যেতে দিচ্ছে না। কারণ তারা জানে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত থাকলে তারা অবাধে দেশের মানুষের সম্পদ লুটপাটের মহোৎসব করতে পারবে না। তাই পরিকল্পিত ভাবে তারা ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে বেগম খালেদা জিয়াকে গৃহবন্দী করে রেখেছে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র সংগ্রামের জন্য সবচেয়ে ত্যাগী এবং নির্যাতিত পরিবারের নাম জিয়া পরিবার। দেশের ক্রান্তিলগ্নে বারবারই জিয়া পরিবার এদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছে। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতেও দেশনায়ক জনাব তারেক রহমানের নেতৃত্বে এক দফা দাবি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে প্রেরণ এবং তত্বাধায়ক সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবী আদায়ের আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমাদের মাঠে নামতে হবে। আর এই আন্দোলনে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ভ্যানগার্ড হিসেবে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখতে হবে। ।

খুলনা মহানগর ছাত্রদলের আহবায়ক ইস্তিয়াক আহমেদ ইস্তির সভাপতিত্বে এবং খুলনা মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক রসিউর রহমান রুবেলের সঞ্চালনায় সকাল ১১টায় খালিশপুর থানা বিএনপি দলীয় কার্যালয়ে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এবং বাদ জুম্মা নগর আহবায়ক ইস্তিয়াক আহমেদ ইস্তির সভাপতিত্বে ও খুলনা মহানগর আহবায়ক সদস্য ইলিয়াস হোসেনের সঞ্চালনায় খানজাহান আলী থানা বিএনপি কার্যালয়ে উক্ত মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দেয়া মাহফিলে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, খুলনা মহানগর ও জেলা বিএনপি নেতাঃ মীর কায়সেদ আলী, স ম আব্দুর রহমান, মনিরুল হাসান বাপ্পি, শাহিনুল ইসলাম পাখি, আবুল কালাম জিয়া, শের আলম সান্টু, শেখ সাদী, বিপ্লবুর রহমান কুদ্দুস, শেখ ইমাম হোসেন, আবু সাইদ হাওলাদার আব্বাস, কাজী মিজানুর রহমান, রুবায়েত হোসেন বাবু, সুলতান মাহমুদ, নুুরুজ্জামান নিশাত, মিরাজুর রহমান মিরাজ, নিঘাত সীমা, মোঃ জাহিদুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম রুবেল, শেখ আলমগীর হোসেন, শেখ আঃ সালাম, মোঃ জামালউদ্দীন, মোল্লা সোহরাব, অানোয়ার হোসেন, শেখ জাহাঙ্গীর হোসেন, শেখ গোলজার হোসেন, শেখ তৈয়্যবুর রহমান প্রমুখ।

যুবদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনঃ মাহবুব হাসান পিয়ারু, চৌধুরী শফিকুল ইসলাম হোসেন, ইবাদুল হক রুবায়েদ, কাজী নেহিবুল হাসান নেহিম, আব্দুল আজিজ সুমন, নাদিমুজ্জামান জনি, সৈয়দ মেহেদী মাসুদ সেন্টু, সোলায়মান মোল্লা, গাজী সালাউদ্দিন, এম এম জসিম, আরিফুর রহমান শিমুল, খায়রুজ্জামান শামীম, সামাদ বিশ্বাস, বিএম মাফিজুর রহমান, নাজমুল হোসেন বাবু, মাহবুবুর রহমান, নাসিম আহমেদ ইমন, পিয়ার সুমন, খলিলুর রহমান, তামজীদ আহমেদ মিশু, মুজাহিদুল ইসলাম টনি, জুয়েল হাসান, রাকিবুল ইসলাম রাজু, আল আমিন তালুকদার, আল আমিন হাওলাদার, শহীদুল ইসলাম সোহেল, গোলাম কিবরিয়া, মাসুম খান, মেহেদী হাসান বাপ্পি, বেগ আরিফ আল হাসান, মোঃ আল আমিন, আরিফুর রহমান আরিফ প্রমুখ।

ছাত্রদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনঃ হেলাল আহমেদ সুমন, আঃ মান্নান মিস্ত্রি, গোলাম মোস্তফা তুহিন, হেদায়েতুল্লাহ দীপু, আবু জাফর, ফিরোজ মাহমুদ, অনিক আহমেদ, মাকসুদ আলম, মনির আহমেদ, মাজহারুল ইসলাম রাসেল, স্বপন রহমাতুল্লাহ, সরদার মাহিম উল হক, উজ্জল হোসেন সুমন, কাজী সালমান মেহেদী, আবু সালেহ শিমুল, গোলাম রাব্বি, মিরাজ হোসেন অনিক, অমিত মল্লিক, কামরুল ইসলাম, হানিফ আকাশ, রাব্বি রহমান, স্বপন হাওলাদার, মহিউদ্দীন তালিম, শুভ কুমার দাস, সৈয়দ মিজান, বেলাল হোসেন, জহিরুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, জামিউল রহমান অপূর্ব, সাইদুজ্জামান, আবু ওবায়দা মাহিম, সাগর হোসেন, ইসমাইল হোসেন দীপু, নয়ন ইসলাম, মোঃ শরীফ, হৃদয় হোসেন, রিয়াজ, সালমান হোসেন, জাবের হোসেন মোল্লা, রায়হান শেখ, আলামিন বাবু, রুবেল, দেলোয়ার রহমান, ওয়ারিশ মাহমুদ, সাকিব, সাইফুল, সুজন খান, বুলবুল, হৃদয় হোসেন রাহাত, রাজু আহমেদ, মালেক মোড়ল রনি, নাজিমউদ্দীন শামীম ভুইয়া, এস এম নয়ন হোসেন, ইমরান সালেহ সিফাত, সাব্বির ফুয়াদ, আমিনুজ্জামান সুজন, হাফিজুর রহমান, তামিম খান, তানভীর আহমেদ, মেহেদী হাসান, খায়রুল ইসলাম, নাহিদ হাসান, অনিক ইসলাম অভি, নাজের মাহমুদ নিবীড়, সাকিন রেজা, সোলায়মান রাহাত, আবির শাহরিয়ার, মাহিন হোসেন, সাগর ফকির, সৈয়দ রাশেদুল ইসলাম, নাইম হোসেন, আশিক হোসেন, ফয়সাল মল্লিক প্রমুখ।

সেচ্ছাসেবক দল নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনঃ ফারুক হিল্টন, আতাউর রহমান রুনু, ইউসুফ মোল্লা, মুনতাসির আল মামুন, খায়রুজ্জামান সজীব, রেজাউল ইসলাম, জাহিদুল ইসলাম বাচ্চু, আলাউদ্দিন তালুকদার, আল আমিন সরদার রতন, মোশাররফ শিকদার, শিহাবুল ইসলাম শিহাব, মোতালেব শেখ, সিরাজুল ইসলাম, নাইম হাসান হাসিব, রিপন শিকদার, মীর মোঃ আল আমিন, আয়ুব সহ অনেকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে