টাচ নিউজ ডেস্কঃ দেশের চালের সবচেয়ে বড় মোকাম নওগাঁ ও কুষ্টিয়ায় কোনো কারণ ছাড়াই আবারও অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। মানভেদে কেজিতে ২ টাকা থেকে ৫ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে চালের দাম।

ভরা মৌসুমে দাম বাড়ায় মিলারদের কারসাজিকে দায়ী করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে মিলারদের দাবি, ধানের দাম ও পরিবহন ব্যয় বাড়াই দাম বৃদ্ধির মূল কারণ।

নওগাঁর খুচরা বাজারে জিরাশাইল বিক্রি হচ্ছে ৬৫ টাকা, নাজিরশাইল ৭২ টাকা, মোটা স্বর্ণা ৪৬ টাকা ও কাটারিভোগ ৭৪ টাকা কেজি।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলছেন, দু’ সপ্তাহ আগেও এসব চাল ৩ থেকে ৫ টাকা কমে পেলেও হঠাৎ মিল পর্যায়ে দাম বাড়ানো হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, পুরাতন চালের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। তবে স্বর্ণা-৫ চালের দাম বস্তাপ্রতি ৫০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে কুষ্টিয়ায় সপ্তাহের ব্যবধানে প্রায় সব ধরনের চাল কেজি প্রতি বেড়েছে ২ থেকে ৩ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। মিলারদের দাবি, বেশি দামে ধান কেনা ও পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধি চালের দাম বাড়ার কারণ।

দেশের বৃহত্তম চালের মোকাম কুষ্টিয়ার খাজানগরে পাইকারিতে বস্তাপ্রতি ১০০-১৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে দাম।

বাজার পর্যালোচনা করে দেখা যায়, গত সপ্তাহে মিনিকেট বিক্রি হয়েছে ৫৬ টাকা, কাজল লতা ৫০ টাকা, বাসমতি ৬৪ টাকা, আটাশ ৫০ টাকা ও স্বর্ণা ৪০ টাকা কেজিদরে।

চলতি সপ্তাহে চালের দাম বেড়ে মিনিকেট বিক্রি হচ্ছে ৫৯ টাকা, কাজল লতা ৫২ টাকা, বাসমতি ৬৬ টাকা, আটাশ ৫২ টাকা ও স্বর্ণা ৪২ টাকা কেজি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে