টাচ নিউজ ডেস্কঃ রুশ সেনারা চলে যাওয়ার পর ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের আশপাশ থেকে নয় শতাধিক বেসামরিক মানুষের মরদেহ পাওয়া গেছে। স্থানীয় পুলিশ প্রধান এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের।

শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে কিয়েভের আঞ্চলিক পুলিশ বাহিনীর প্রধান অ্যান্ড্রি নেবিতোভ জানিয়েছেন, মরদেহগুলো রাস্তায় ফেলে রাখা অথবা অস্থায়ীভাবে পুঁতে রাখা হয়েছিল। নিহতদের প্রায় ৯৫ শতাংশই গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন।

নেবিতোভের কথায়, আমরা পরিষ্কার বুঝতে পারছি, দখলদারদের অধীনে মানুষজনকে রাস্তায় ফেলে হত্যা করা হয়েছে।

তিনি জানান, ধ্বংসস্তূপের নিচে ও গণকবরগুলো থেকে প্রতিদিনই মরদেহ পাওয়া যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি মরদেহ পাওয়া গেছে বুচা শহরে। সেখানে এ পর্যন্ত সাড়ে তিনশর বেশি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগে, চলতি মাসের শুরুর দিকে বুচা শহরে প্রথমবারের মতো গণকবরের সন্ধান পায় ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ।

ইউক্রেনীয় নেতারা জানিয়েছেন, মারিউপোলে নিহত বেসামরিক লোকের সংখ্যা আরও বেশি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। শহরটি কয়েক সপ্তাহ ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছে রুশ সেনারা।

মারিউপোলের বাসিন্দারা দাবি করেছেন, রুশ সেনাদের ‘যুদ্ধপরাধ’ এড়াতে বহু মরদেহ মাটিচাপা দিতে দেখেছেন তারা।

গত ১২ এপ্রিল ইউক্রেন সফরে গিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রধান প্রসিকিউটর বলেছেন, সেখানে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়েছে তা বিশ্বাস করার ‘যুক্তিসঙ্গত ভিত্তি’ রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে