কুমিল্লা প্রতিনিধি:

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উন্নয়নে গৃহীত পরিকল্পনা লন্ডভন্ড হয়ে গেলেও বাংলাদেশ সঠিক পথেই হাঁটছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম।

তিনি আজ কুমিল্লার লাকসামে যমুনা ব্যাংক ডায়ালাইসিস সেন্টার এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা জানান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ করোনার কারণে এখন পর্যন্ত কোনো পরিকল্পনা নিতে পারছে না। কিন্তু বাংলাদেশ পরিকল্পনা করে উন্নয়নের রোডম্যাপ তৈরি করছে এবং রোডম্যাপ অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে এগিয়ে যাচ্ছে।

বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর করোনাকালীন সময়ে দেশের মানুষ এবং কৃষি, শিল্প এবং স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন খাত সচল রাখার জন্য ৮০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা দাবি করেছিলেন এবং মনে করেছিলেন সরকার তা দিতে ব্যর্থ হবে। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১ লক্ষ ৫ হাজার কোটি টাকার বেশি প্রণোদনা ঘোষণা করেছেন, জানান মোঃ তাজুল ইসলাম।

মন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারীর মধ্যেও বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য উন্নয়ন অগ্রযাত্রার ম্যাজিক সম্পর্কে বিভিন্ন দেশের নেতৃবৃন্দ এবং প্রতিনিধিরা তার কাছে জানতে চেয়েছেন। তিনি তাদের জানান এটি কোন ম্যাজিক নয়, এটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার দূরদর্শিতা, বলিষ্ঠ নেতৃত্ব, সুপরিকল্পিত পরিকল্পনা এবং সঠিক নির্দেশনার ফল।

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশের অর্থনৈতিক খাত, শিল্পায়ন, শিক্ষা-স্বাস্থ্য, শতভাগ বিদ্যুতায়ন, রাস্তা-ঘাট নির্মাণ ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ সকল ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জিত হয়েছে এবং দেশ বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার মাধ্যমে বাঙালির আশা-আকাঙ্ক্ষা ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে স্বাধীনতার বিরোধিরা।
বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর স্বাধীনতা বিরোধী, রাজাকাররা ক্ষমতায় এসে
জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, দূর্নীতি, চাঁদাবাজি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাত ধ্বংস করে দিয়েছে। শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২১ গ্রেনেড হামলা, এক সাথে ৬৩ জেলায় বোমা হামলা ছাড়াও সারাদেশে বিভীষিকাময় অবস্থা তৈরি করেছে। বঙ্গবন্ধুর যোগ্য উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে স্বাধীনতার চেতনা প্রতিষ্ঠা এবং ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে দেশকে সঠিক পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগ এবং যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকসহ স্থানীয় দলীয় নেতাকর্মী ও সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন কেউ যদি কোন প্রকার অন্যায় অনিয়ম, ঘুষ-দুর্নীতির সাথে যুক্ত থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যমুনা ব্যাংক কর্তৃক স্থাপিত ডায়ালিসিস সেন্টার স্থাপন প্রসঙ্গে বলেন ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে।

যমুনা ব্যাংক ফাউন্ডেশন ও যমুনা নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নূর মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আব্দুর রশিদ, যমুনা ব্যাংকের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মির্জা ইলিয়াছ উদ্দিন আহম্মেদ।

পরে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী লাকসাম পৌরসভার লাকসাম সাহাপাড়া নবনির্মিত আরসিসি রাস্তা ও ড্রেন, ডাকাতিয়া নদীর উপর ৪০ কিলোমিটার আরসিসি আর্চ গার্ডার ব্রিজ, নওয়াব ফয়জুন্নেসা কলেজের সামনের ব্রিজ, ডাস্টবিন প্রকল্প, বঙ্গবন্ধু কর্ণার, পৌরভবন সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়ন এবং ডাকাতিয়া নদীর উপর লাকসাম-পেয়ারাপুর ব্রিজসহ বিভিন্ন নির্মানের কাজের উদ্বোধন এবং ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে