টাচ নিউজ ডেস্ক:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের প্রতিটি শিশু যেন সুন্দরভাবে বাঁচতে পারে। আর প্রত্যেকটা শিশুর জীবন যেন অর্থবহ হয়। সেটিই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। শিশুদের বিরুদ্ধে অন্যায়-অবিচার কখনই বরদাশত করা হবে না। যারা শিশু নির্যাতন বা শিশু হত্যা করবে, তাদের কঠোর থেকে কঠোর সাজা পেতে হবে।
রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুক্রবার বিকেলে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যের পূর্বে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশু-কিশোরদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। এরপর দ্বিতীয় পর্বে মঞ্চের সামনের আসনে বসে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা দেখেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমরা চাই, আমাদের আর কোনো শিশু যেন কখনও এ ধরনের হত্যার সম্মুখীন না হয়। প্রতিটি শিশু যেন সুন্দরভাবে বাঁচতে পারে। আর প্রত্যেকটা শিশুর জীবন যেন অর্থবহ হয়। সেটিই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। সরকার প্রধান হিসেবে শিশুরা যেন ঝুঁকিপূর্ণ কোনো কাজ না করে সেই ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণে তাদের বিভিন্ন শিক্ষাদীক্ষায় গড়ে তোলার লক্ষ্যে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
পাশাপাশি ঝরে পড়া শিশুদেরও শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা থেকে যারা এতিম; যাদের সমাজে কেউ দেখার নেই তাদের জন্যও বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।
শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ গড়ে তোলার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে শেখ হাসিনা আরও বলেন, ১৯৮৯ সালে আমরা এ প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছিলাম। শিশুদের নিয়ে শিশু সংগঠন হিসেবে পাশে থাকার জন্য। সেই প্রতিষ্ঠানটি আজকে অনেক বড় হয়েছে এবং এই প্রতিষ্ঠানের অনেক ছেলে-মেয়ে আজকে কত বড় হয়ে গেছে। তারা অনেকেই জীবনের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। আজকে রনি ওখানে ঘোষণা দিচ্ছে, সে ব্যারিস্টার হয়ে এসেছে। ঠিক এরকমভাবে আমাদের শিশু-কিশোর পরিষদের অনেক ছেলে-মেয়ে সমাজের বিভিন্ন জায়গায় তারা তাদের স্থান করে নিতে পেরেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে