টাচ নিউজ ডেস্ক: দিনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সূচকের তেজিভাবের মধ্য দিয়ে দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে। এতে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সূচকের পাশাপাশি লেনদেন ও অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।

এদিন ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, প্রকৌশল, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি এবং ওষুধ ও রসায়ন খাতসহ বেশিরভাগ খাতের শেয়ারের দাম বেড়েছে। সেই ধাক্কায় দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচক বেড়েছে ৬৪ পয়েন্ট। এর আগের দিন বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) বেড়েছিল ৪৭ পয়েন্ট। অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বেড়েছে ১৭২ পয়েন্ট।

ফলে তিন দরপতনের পর মঙ্গল, বুধ এবং বৃহস্পতিবার টানা তিনদিন পুঁজিবাজারে উত্থান হলো। তার আগে টানা তিন দিন (গত সপ্তাহের বুধ, বৃহস্পতি ও চলতি সপ্তাহের রোববার) দরপতন হয়েছিল। তবে পরবর্তীতে তিন দিনে ( মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার) ডিএসইর প্রধান সূচক ১৫৮ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৯৮১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অর্থাৎ ৭ হাজার পয়েন্ট ছুঁইছুঁই। লেনদেনও দেড় হাজার কোটি টাকার কোটা থেকে আড়াই হাজার কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। এতে বিনিয়োগকারীদের বাজার মূলধন ৮ হাজার ৯৩৬ কোটি ৩ লাখ ৮২ হাজার টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৬৩ হাজার ৭১৫ কোটি ৬৪ লাখ ২৩ হাজার টাকা।

বুধবার ব্যাংক খাতের তালিকাভুক্ত ৩২টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছিল ২৩টির, কমে ৫টির, আর অপরিবর্তিত থাকে চারটির। আর্থিক খাতের ২৩টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছিল ১৬টির, কমে ২টির, আর অপরিবর্তিত ছিল ৫টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

ডিএসইর তথ্য মতে, বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) ডিএসইতে মোট ৩৭৩টি প্রতিষ্ঠানের ৬৩ কোটি ৬০ লাখ ৭২ হাজার ৯০৬টি শেয়ার হাত বদল হয়েছে। এর মধ্যে ২৩৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ১০৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টির। ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৪৭৪ কোটি ৩ লাখ ৪ হাজার টাকা। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৩৬৬ কোটি ৩৬ লাখ ২৯ হাজার টাকা। অর্থাৎ আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে