টাচ নিউজ ডেস্কঃ উন্নত রাষ্ট্র গড়তে দক্ষ যুবকের ভূমিকা অপরিসীম। যুবকরাই পারে সকল বাধা অতিক্রম করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে বলে মন্তব্য করেছেন  যব উন্নয়ন অধিদপ্তরের  মহাপরিচালক (ডিজি) মো. আজহারুল ইসলাম খান।

মহাপরিচালক (ডিজি) মো. আজহারুল ইসলাম খান বলেন, তবে জনশক্তি রপ্তানিতেও দক্ষ যুবকের প্রয়োজন। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষন দিয়ে বেকার যুব ও যবুনারীরাও নিজের পায়ে দাড়াতে পারে। সফল হয়েছেন এমন অনেক। এ লক্ষ্যে দেশের যুবদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য যোগোযোগী ও আধুনিক প্রশিক্ষণ প্রদানসহ আরও নতুন নতুন প্রকল্প চালু হতে যাচ্ছে। সারাদেশে চালু করা বায়োগ্যাস প্রকল্প, ড্রাইভিং প্রশিক্ষণও।

সিমিত সম্পদের মধ্যে প্রতি বছর তিন লক্ষাধিক যুবদের প্রশিক্ষণ দেয়ার কথা উল্লেখ করে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আজহারুল ইসলাম খান আরো বলেন, বিশ্বব্যাংক এবং ইউএসএইড হতে প্রায় নয় শত কোটি টাকার দুটি প্রকল্প ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এর কাজ শুরু হবে। তা ছাড়া প্রশিক্ষিতদের সনদপত্র বন্ধকী রেখে যুবদের সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা ঋণ দেয়ার ব্যাপারে এনআরবিসি ব্যাংকের সাথে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ঋণ আদায়ে ব্যাংকে সহযোগীতা প্রদান করবে। তিনি বলেন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের দেয়া ঋণসমূহ ৯৫ শতাংশই আদায়ে হয়ে থাকে।

যুবদের উৎপাদিত পণ্য অনলাইন মার্কেটের মাধ্যমে বিপননের জন্য প্রত্যেক জেলা প্রশাসকদের সহযোগীতা নিয়ে একটি অনলাইন মার্কেট ক্ষেত্র তৈরি করা হবে। যুব উন্নয়ন এর তত্ত্বাবধান ও মনিটরিং করবে বলেও ঘোষণা দিয়ে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, আরো অনেক নতুন নতুন কর্মসূচী আসছে।

কর্মকর্তাদের নিজ নিজ দপ্তর এলাকার অবস্থান করে সকল কর্মসূচী ও প্রকল্পের সফল বাস্তবায়নের জন্য মাঠে পর্যায়ের যুব উন্নয়ন কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এর মাধ্যমে যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষকরা দেশসেরা আদর্শ প্রশিক্ষক হিসেবে খ্যাতি পাবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে