টাচ নিউজ ডেস্কঃ পূর্ব ইউক্রেনে রাশিয়া সীমান্তের কাছে রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের গোলার আঘাতে ইউক্রেনের এক সৈন্য নিহত হয়েছেন বলে দেশটির সামরিক বাহিনী জানিয়েছে। পূর্ব ইউরোপে যুদ্ধের তীব্র শঙ্কার মাঝে শনিবার সকালের দিকে ওই সৈন্য নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটল।

দুই মাসের বেশি সময় ধরে দুই দেশের সীমান্তে চলা উত্তেজনার মাঝে শনিবারের এই হামলার পেছনে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর হাত রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, তারা বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা পূর্ব ইউক্রেনের দোনেস্ক শহরের উত্তরেও কয়েকটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন। তবে এসব বিস্ফোরণের কারণ পরিষ্কার নয়। এছাড়া এসব বিস্ফোরণের ব্যাপারে বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্তৃপক্ষ অথবা কিয়েভ তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক পেইজে দেওয়া এক বিবৃতিতে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী বলেছে, শনিবার বিচ্ছিন্নতাবাদীরা অন্তত ১৯ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে। আগের ২৪ ঘণ্টায় লঙ্ঘন করেছিল ৬৬ বার।

ইউক্রেনের সেনাবাহিনী বলেছে, বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ভারী গোলাবারুদ ব্যবহার করে ২০টির বেশি স্থাপনায় গোলাবর্ষণ করেছে; যা মিনস্ক চুক্তি অনুযায়ী নিষিদ্ধ।

চলতি সপ্তাহে বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং ইউক্রেনের সরকারি বাহিনীকে বিভক্তকারী সীমান্তরেখা বরাবর গোলাবর্ষণের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ইউক্রেনের সরকার এসব ঘটনাকে উসকানি বলে অভিহিত করেছে। এছাড়া পূর্ব ইউক্রেনে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত এলাকায় কিয়েভ হামলা চালাতে পারে বলে রাশিয়া যে ইঙ্গিত দিয়েছে তা দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে ইউক্রেন।

এদিকে, শনিবার ইউক্রেনের ভেঙে যাওয়া তথাকথিত গণপ্রজাতন্ত্রী দোনেস্কের নেতা বলেছেন, সাবেক সোভিয়েতভুক্ত দেশটিতে যুদ্ধের তীব্র আশঙ্কা তৈরি হওয়ায় তিনি সাধারণ লোকজনকে রাশিয়ায় সরিয়ে নেওয়ার কাজে নেতৃত্ব দেবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে