টাচ নিউজ ডেস্কঃ রাশিয়া সামরিক অভিযান শুরুর পর থেকে ইউক্রেনে প্রায় ২৪০টি সাইবার হামলা চালিয়েছে ক্রেমলিনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অন্তত ছয়টি হ্যাকার গোষ্ঠী।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটের প্রতিবেদনের বরাতে এ খবর জানায় সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

মাইক্রোসফটের ভাইস প্রেসিডেন্ট টম বার্ট বলেন, রাশিয়ার সাইবার হামলা ইউক্রেনে তাদের সামরিক অভিযানের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত বলেই মনে হয়। এটি মস্কোর সামরিক অভিযান গতিশীল করারও একটি কৌশল।

এর আগে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনের বিভিন্ন ব্যাংক এবং সরকারি মন্ত্রণালয়ে সাইবার হামলা চালায় রাশিয়া। সে সময় রাশিয়ার একজন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে জানান, স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা চালানো হয়েছে।

পরে ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় ব্যাংক ‘ওশাদব্যাংক’ সাইবার হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায়, সাইবার হামলার কারণে তাদের কিছু সিস্টেম ধীরগতির হয়ে গেছে। সাইবার হামলার শিকার ‘প্রিভাত’ নামে আরেক ব্যাংকের গ্রাহকরা একই সমস্যার কথা জানান। অবশ্য এ বিষয়ে তখন কোনো মন্তব্য করেনি প্রিভাত ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

এদিকে বুধবার (২৭ এপ্রিল) যুক্তরাজ্যের বৈদেশিক নীতিসংক্রান্ত আলাপকালে ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিব লিজ ট্রাস বলেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে ইউক্রেনে জয়ী হতে দেওয়া উচিত নয়। ইউক্রেন যুদ্ধে জয়লাভ করলে রাশিয়া অন্য দেশেও আক্রমণ করতে পারে। আবার রাশিয়া থেকে উৎসাহিত হয়ে চীনও তাইওয়ানকে বরবাদ করে দিতে পারে। অর্থাৎ ইউক্রেনে রুশ অভিযানের মতো তাইওয়ানে চীনা অভিযান শুরু হতে পারে।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিব বলেন, মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোর উচিত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে নিরাপত্তা জোরদার করা। চীনের হাত থেকে তাইওয়ানকে বাঁচানোর ইঙ্গিত দিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে