টাচ নিউজ ডেস্কঃ রাশিয়ার চেচেন প্রজাতন্ত্রের প্রধান রমজান কাদিরভ ইউক্রেনের একটি অঞ্চল দখলের দাবি করেছেন।

টেলিগ্রাম বার্তায় রমজান কাদিরভ দাবি করেন, চেচেনের বিশেষ বাহিনীর যোদ্ধারা পোপাসনার অধিকাংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন।

চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ সর্বদা নিজেকে পুতিনের ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন।
টেলিগ্রাম বার্তায় প্রেসিডেন্ট পুতিনের এই মিত্র লেখেন, পোপাসনা শহরের কেন্দ্রীয় জেলা এবং প্রধান সড়ক সম্পূর্ণ মুক্ত করা হয়েছে।

পোপাসনা ইউক্রেনের পূর্বের লুহানস্কের একটি অঞ্চল।

তবে চেচেন নেতার এই দাবির বিষয়ে ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে জেলেনস্কির একজন উপদেষ্টা শনিবার বলেন, শহরটিতে ব্যাপক যুদ্ধ চলছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, রাশিয়ার প্রোপাগান্ডার সৈনিকরা অনেক আগে থেকে দাবি করছে, তারা এটা দখল করেছেন। তবে তারা যেমনটি দাবি করছে তেমনটি নয়। শুধুমাত্র চলতি সপ্তাহেই ১১৭ বার তারা পোপাসনা দখলের দাবি করেছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

রমজান কাদিরভ চেচনিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট আখমাদ কাদিরভের ছেলে। ২০০৪ সালে হত্যাকাণ্ডের শিকার হন আখমাদ। এর তিন বছর পর প্রেসিডেন্ট হন রমজান।

আখমাদ ও রমজান দুজনই প্রথম চেচেন যুদ্ধে (১৯৯৪–১৯৯৬ সাল) রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। তবে দ্বিতীয় চেচেন যুদ্ধে (১৯৯৯–২০০০ সাল) রাশিয়াকে সমর্থন জানান বাবা–ছেলে। যুদ্ধে জয় পায় মস্কো। চেচনিয়া পরিণত হয় রাশিয়ার একটি অঞ্চলে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে রমজান কাদিরভের রাজনৈতিক বোঝাপড়া রয়েছে। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই পুতিনের প্রতি আনুগত্য দেখিয়েছেন রমজান। বিপরীতে মস্কো থেকে বড় আর্থিক সুবিধা পেয়েছে চেচনিয়া প্রজাতন্ত্র।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে