টাচ নিউজ ডেস্কঃ ইউরোপের পূর্বাঞ্চলীয় রাষ্ট্র ইউক্রেনে চলমান সামরিক অভিযান আরও জোরদার করতে রাশিয়ার সেনাবাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছে মস্কো। প্রতিবেশী রাষ্ট্র বেলারুশে আলোচনায় বসার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার পরপরই নির্দেশনাটি দেয় রুশ কর্তৃপক্ষ।

মূলত ইউক্রেনের বিরুদ্ধে চলমান আক্রমণ ‘সব দিক থেকে’ আরও জোরদারের জন্য সশস্ত্র সামরিক বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়ার কথা জানিয়েছে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। রবিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা তথ্যটি নিশ্চিত করেছে।

গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় ভোর রাতে ইউক্রেনের ভূখণ্ডে প্রবেশ করে রাশিয়ান সৈন্যরা আক্রমণ শুরু করে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এবারই প্রথম ইউরোপের প্রথম দেশ হিসাবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রপথে ইউক্রেনে সবচেয়ে বড় এই হামলা শুরু করে। একই সঙ্গে তিন দিক দিয়ে হওয়া এই হামলায় ইউক্রেনের বিভিন্ন শহরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র বৃষ্টির মতো পড়েছে।

আক্রমণের তৃতীয় দিনে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে ব্যাপক হামলা চালায় রুশ সামরিক বাহিনী। এতে করে পূর্ব ইউরোপের দেশটির রাজধানীর সড়কে সড়কে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। অবশ্য প্রবল আক্রমণের মুখেও কিয়েভে বেশ শক্ত প্রতিরোধের মুখেই পড়েছে রুশ বাহিনী।

শনিবার বিবৃতির মাধ্যমে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ইগোর কোনাশেঙ্কোভ জানিয়েছেন, ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষ আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় বিদ্যমান পরিকল্পনার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সব দিক থেকে দেশটির বিরুদ্ধে চলমান আক্রমণ আরও জোরদার করতে সামরিক বাহিনীর সকল ইউনিটকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ দিকে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের নিটকে অবস্থিত ভ্যাসিলকিভ শহরের একটি তেল ডিপোতে আঘাত হেনেছে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র। এতে করে ওই তেল ডিপোতে আগুন ধরে যায়। রবিবার প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে তথ্যটি জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

তেল ডিপোতে রুশ আক্রমণের তথ্য নিশ্চিত করে অনলাইনে দেওয়া এক ভিডিয়ো বার্তায় ভ্যাসিলকিভ শহরের মেয়র নাতালিয়া বালাসিনোভিচ বলেছেন, শত্রুরা আমরাদের সবকিছু ধ্বংস করে দিতে চায়।

এছাড়া অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া বেশকিছু ছবিতে ভ্যাসিলকিভ শহরের ওই তেল ডিপোতে হামলার পর সেখানে আগুন জ্বলতে এবং ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠতে দেখা যায়।

অপর দিকে রুশ সৈন্যদের আক্রমণের মুখে পিছিয়ে নেই ইউক্রেনও। দেশটির দাবি, শনিবার রাশিয়ার দুটি বড় পরিসরের সামরিক বিমান ভূপাতিত করেছে তারা। অন্য দিকে ভূপাতিত করা বিমান দুটিতে ৩০০ জন পর্যন্ত রুশ সৈন্য অবস্থান করছিলেন বলে জানায় ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর ফেসবুক পেজে দেওয়া পোস্টের বরাতে ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি নিউজ বলছে, ইউক্রেনে আক্রমণ শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজারেরও অধিক রুশ সৈন্য প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া আরও প্রায় ২০০ রুশ সৈন্যকে বন্দি করা হয়েছে।

ইউক্রেনীয় সামরিক বাহিনী আরও দাবি করছে, আক্রমণ চালাতে এসে রাশিয়া এ পর্যন্ত ১৪টি যুদ্ধবিমান, আটটি হেলিকপ্টার এবং ১০২টি ট্যাংক হারিয়ে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে