টাচ নিউজ ডেস্কঃ বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ‘কেজিএফ: চ্যাপটার টু’ সিনেমায় তার অভিনয় দর্শকের মন জয় করেছে। সিনেমায় তার চরিত্রের নাম আধীরা।

ক্যানসার থেকে সেরে উঠে ‘কেজিএফ: চ্যাপটার টু’ সিনেমার শুটিং করেছেন সঞ্জয়। এক সাক্ষাৎকারে জটিল এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সময়ের স্মৃতিচারণ করেছেন তিনি। এই অভিনেতা বলেন, ‘দুই-তিন ঘণ্টা কেঁদেছি। আমাকে কীভাবে জানানো হবে সেটি নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল। এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল যে আমি কাউকে হয়তো মেরেই বসতাম। তখন আমার বোন এসে আমাকে বিষয়টি জানায়। আমি বলেছিলাম, ক্যানসার আক্রান্ত হয়েছি। এখন কী হবে?’

তিনি আরো বলেন, ‘এরপর কী করা যায় তা নিয়ে পরিকল্পনা শুরু করলাম। এটা সেটা করবো। কিন্তু দুই-তিন ঘণ্টার বেশি সময় ধরে কেঁদেছি। কারণ পরিবার, বাচ্চা, সবকিছু নিয়ে চিন্তা করছিলাম। সবকিছু চোখের সামনে ভাসছিল। মনে মনে বলছিলাম, আমাকে দুর্বল হলে চলবে না।’

ক্যানসারের চিকিৎসা নিয়ে এই অভিনেতা বলেন, ‘আমাকে বলা হয়েছিল, মাথার চুল পড়ে যাবে, বমি হবে। আমি ডাক্তারকে বলেছিলাম, কিছু হবে না। চুলও পড়বে না, বমিও হবে না, এমনকি বিছানাতেও শুয়ে থাকবো না। আমার কথা শুনে তিনি হেসেছিলেন। কেমোথেরাপি হলো এবং আমি ফিরে এসে আমার বাইকে বসলাম, সাইকেল চালালাম। প্রতিদিন এমনটাই করতে থাকলাম। প্রতিবার কেমোথেরাপি নেওয়ার পর এটা করতাম। আমি দুবাইয়ে কেমোথেরাপি নিতাম, এরপর ব্যাডমিন্টন কোর্টে গিয়ে দুই-তিন ঘণ্টা খেলতাম।’

ফুসফুসের ক্যানসারের তৃতীয় ধাপে ছিলেন সঞ্জয়। শুরুতে মুম্বাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেন তিনি। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাহিরে যান এবং সুস্থ হয়ে ওঠেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে