টাচ নিউজ ডেস্ক: আগের স্বামী রাকিব হাসানকে ডিভোর্স না দিয়েই ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তামিমা সুলতানা তাম্মি, যা দেশের আইনে অবৈধ। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্তে এ তথ্য উঠে এসেছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসীমের আদালতে এ সংক্রান্ত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছেন পিবিআইয়ের কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাসির হোসেন ও তামিমা তাম্মির বিয়ে বৈধ উপায়ে হয়নি। আগের স্বামী রাকিব হাসানের সঙ্গে তামিমার বিবাহ বিচ্ছেদের নথি জালিয়াতি করে তৈরি করা হয়েছে।

এর আগে ডিভোর্স পেপার ছাড়াই অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মির বিরুদ্ধে মামলা হয়। ২৪ ফেব্রুয়ারি, বুধবার ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে রাকিব হাসান বাদী হয়ে এ মামলা করেন। মামলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাকিব হাসানের সঙ্গে তামিমার তিন লাখ এক টাকা দেনমোহরে বিয়ে এবং রেজিস্ট্রি হয়। তাদের আট বছর বয়সী মেয়ে রয়েছে। তামিমা বিবাহ বিচ্ছেদ না করে নাসিরকে বিয়ে করেন। নাসির রাকিবকে ফোনে জানান যে সম্পূর্ণ বিষয়টি তিনি অবগত আছেন। রাকিবকে তালাক না দিয়ে তামিমার নাসিরকে বিয়ে করা ধর্মীয় এবং রাষ্ট্রীয় আইনে অবৈধ। আর এ অবৈধ বিয়ে করে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন হচ্ছে নিকৃষ্ট ব্যভিচার।

তামিমা-নাসিরের এ কাজে রাকিব ও তার মেয়ে মানিসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন এবং তাদের মানহানি ঘটেছে বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে